নাসায় চাকরীর যোগ্যতা , আবেদন , ইন্টারভিউ এবং বেতন

আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনারা জানতে পারবেন নাসায় চাকরীর যোগ্যতা এবং বেতন সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।

নাসায় চাকরীর যোগ্যতাঃ

নাসায় চাকরি করার জন্য বেশ যোগ্যতার প্রয়োজন।

 

কারণ, আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন পরিচালনা, কক্ষপথে স্যাটেলাইট পাঠানো, মহাকাশ থেকে আবহাওয়ার নজরদারি, সৌরজগতের বিভিন্ন গ্রহের তথ্য উদ্‌ঘাটনে বিভিন্ন মহাকাশ মিশন পরিচালনাসহ নানা ধরনের কাজ করে নাসা।

 

চাঁদ ও মঙ্গলে বসবাসের সম্ভাবনা সম্পর্কেও করে গবেষণা।
এই সংস্থায় চাকরির জন্য নিজেকে প্রমাণ করতে হয় নানা দিক থেকে।

 

প্রাথমিকভাবে শিক্ষাগত যোগ্যতার মানদণ্ডে উত্তীর্ণ হতে হবে। আগ্রহী প্রার্থীকে বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, প্রকৌশলী, গণিতে স্নাতকোত্তরের পাশাপাশি থাকতে হয় প্রয়োজনীয় কাজের অভিজ্ঞতা।

 

প্রতিযোগিতামূলক এ ধরনের পরীক্ষায় দলীয় সমন্বয়, যোগাযোগ, ভাষা ও বাজেট সমন্বয়ে অধিক দক্ষ প্রার্থীরা এগিয়ে থাকেন।

বিমান চালনা বিদ্যা, মহাকাশ স্টেশন, সৌরপ্রক্রিয়া, তথ্যপ্রযুক্তি, পৃথিবী ও মঙ্গল গ্রহের বিষয়গুলোতেও ভালো ধারণা থাকতে হয় চাকরিপ্রত্যাশীদের।

 

চাকরিপ্রত্যাশীদের যোগ্য থাকতে হয় শারীরিকভাবেও।

চোখের দৃষ্টিশক্তি ভালো থাকার পাশাপাশি, রক্তচাপও স্বাভাবিক হতে হবে, যা কি না হতে হয়—১৪০/৯০। উচ্চতা হতে হবে ৫ ফুট ২ ইঞ্চি থেকে ৬ ফুট ৩ ইঞ্চি।

 

সাক্ষাৎকারঃ নাসায় চাকরীর যোগ্যতা ও সাক্ষাৎকার

সাক্ষাৎকারের বিভিন্ন ধাপে প্রার্থীকে টিকে থাকার কঠিন লড়াইয়ে নামতে হয়।

 

প্রার্থীকে নাসার বাছাই কমিটিকে সন্তুষ্ট করতে হবে। কারণ, এই দুর্লভ সুযোগ বিশ্বের হাতে গোনা কয়েকজন মানুষই পান। নাসার কোনো একটি পদের জন্য কমপক্ষে ১০০ জন সমান যোগ্যতার প্রার্থী থাকেন।

তাই তাঁদের সবাইকে পেছনে ফেলে কাঙ্ক্ষিত চাকরিটি হাতিয়ে নিতে হলে যোগ্যতার পাশাপাশি ভাগ্যেরও সহায়তা দরকার।

 

এমনও দেখা যায় যে ১০ থেকে ১২ জন লোক নিয়োগের জন্য ২০ হাজারের বেশি যোগ্য ব্যক্তি আবেদন করেছেন।

সচরাচর ২০ হাজার জনের চাকরি পাওয়ার মতো সব যোগ্যতা থাকার পরও চাকরি পাবেন ১০ থেকে ১২ জনই। যেমন এবার ১৮ হাজার ৩০০ আবেদনের মধ্য থেকে বেছে নেওয়া হবে মাত্র ১২ জনকে।

 

নাসায় চাকরীর যোগ্যতা এবং সাক্ষাৎকারের পরের ধাপঃ

সাক্ষাৎকারের পরের ধাপে নির্বাচিত হওয়ার পরই নাসায় চাকরি হয়ে গেল—ধরে নেওয়ার কোনো কারণ নেই।

কারণ, এরপরও বেশ কিছু ধাপ পেরোতে হবে। দুই বছরের কঠোর প্রশিক্ষণ ও মূল্যায়নে উত্তীর্ণ হতে হবে প্রার্থীকে।

 

চার বছরের কলেজ ডিগ্রি অর্জনের জন্য যে ধরনের পরিশ্রম করতে হয়, এ দুই বছরে তার থেকে অনেক বেশি চাপ সহ্য করতে হয়।

 

প্রশিক্ষণ নেওয়া দলের সবাইকে যেকোনো পরিস্থিতি সামলে নেওয়ার মতো যোগ্যতা দেখাতে হয়।

 

এ জন্য পানিতে সাঁতরানোর অভিজ্ঞতাও থাকতে হয়।

মহাশূন্যে যে ধরনের পরিবেশে কাটাতে হয়, তাদের আগে থেকেই সেই ধরনের পরিবেশের মুখোমুখি হতে হয়। জেট এয়ারক্রাফটে শূন্য মাধ্যাকর্ষণ পরিবেশের সঙ্গেও খাপ খাইয়ে নিতে হয় প্রশিক্ষণার্থীদের।

 

বিশেষ কিছু খাতঃ নাসায় চাকরীর যোগ্যতা এবং নির্ধারিত পোস্ট

চিকিৎসাশাস্ত্রে নাসায় কাজ করার সুযোগ তুলনামূলকভাবে খুব বেশিই কঠিন।

 

কারণ এখানে পদসংখ্যা কম থাকে। নাসা সাধারণত নিজেরাই বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে চিকিৎসক বেছে নিয়ে থাকে।

যারা বিশেষভাবে শুধুমাত্র প্রযুক্তিবিদ্যার বিভাগে কাজ করতে চান তাদের জন্য প্রয়োজনীয় শিক্ষাগত যোগ্যতা নিম্নরূপঃ

 

নাসায় শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ

বৈমানিক বিদ্যাঃ নাসায় শিক্ষাগত যোগ্যতা যা প্রয়োজন

বৈমানিক প্রকৌশলবিদ্যা (Aeronautical Engineering)

বিমানচালনাবিদ্যা- Aeronautics)

 

শিল্প প্রকৌশল- Industrial Engineering

এরোস্পেস ইঞ্জনিয়ারিং- Aerospace Engineering

ম্যাটেরিয়াল ইঞ্জিনিয়ারিং- Materials Engineering

 

ম্যাটেরিয়াল সায়েন্স- Materials Science

এস্ট্রোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং- Astronautical Engineering

 

এস্ট্রোনটিকস- Astronautics

গণিত কিংবা ফলিত গণিত- Mathematics, Applied or Pure

 

জ্যোতির্বিদ্যা Astronomy

ভূপদার্থবিদ্যা Geophysics

 

যন্ত্রবিদ্যাঃ নাসায় চাকরীর যোগ্যতা যন্ত্রবিদ্যা

Mechanics, Applied or Engineering

জ্যোতিঃপদার্থবিদ্যা- Astrophysics

 

যন্ত্র প্রকৌশল- Mechanical Engineering

জৈব চিকিৎসা প্রকৌশল- Biomedical Engineering

 

ধাতু প্রকৌশল- Metallurgical Engineering

সিরামিক ইঞ্জিনিয়ারিং- Ceramic Engineering

 

ধাতুবিদ্যা- Metallurgy সিরামিকস- Ceramics

আবহবিদ্যা- Meteorology

কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং- Chemical Engineering

 

নিউক্লিয়ার বিদ্যাঃ নাসায় চাকরীর যোগ্যতা নিউক্লিয়ার বিদ্যা

নিউক্লিয়ার ইঞ্জিনিয়ারিং- Nuclear Engineering

রসায়ন- Chemistry

 

পারমাণবিক প্রকৌশল পদার্থবিদ্যা- Nuclear Engineering Physics

সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং- Civil Engineering

 

সমুদ্রবিদ্যা- Oceanography

কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং- Computer Engineering

 

আলোক প্রকৌশল- Optical Engineering

কম্পিউটার বিজ্ঞান- Computer Science

 

পদার্থবিদ্যাঃ নাসায় চাকরীর যোগ্যতা পদার্থবিদ্যা

পদার্থবিদ্যা- Physics

 

ভূবিজ্ঞান ও গ্রহ বিজ্ঞান- Earth and Planetary Science

ফলিত পদার্থবিদ্যা কিংবা প্রকৌশল পদার্থবিদ্যা- Physics, Applied or Engineering

 

তড়িৎ প্রকৌশল- Electrical Engineering

ইলেকট্রনিক প্রকৌশল- Electronics Engineering

 

মহাকাশ বিজ্ঞান- Space Science

স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়ারিং- Structural Engineering

 

ভূতত্ত্ব- Geology

ওয়েল্ডিং ইঞ্জিনিয়ারিং- Welding Engineering

 

নাসায় আবেদনপত্রঃ

নাসায় আবেদনপত্র, শারীরিক যোগ্যতা, সাক্ষাৎকার ইত্যাদি ধাপ পেরিয়ে গেলেও চাকরি সুনিশ্চিত হয় না।

 

এখানে প্রায় দুই বছর বিভিন্ন রকম প্রশিক্ষণের মধ্য দিয়ে যেতে হয় এবং এখানে পাস করে গেলেই তবেই চাকরি পেয়ে গিয়েছেন বলা চলে।

নাসার মতো একটি নির্ভরযোগ্য সংস্থায় চাকরি পাওয়া বেশ কঠিন এবং প্রতিযোগিতামূলক।

 

প্রতিবারই একেকটি পদের জন্য প্রায় ১,০০০ থেকে ১,২০০ মানুষ আবেদন করে থাকে। সবাইকে ছাপিয়ে নিজ যোগ্যতায় সেখানে টিকে যাওয়াটা কিছুটা ভাগ্যের ব্যাপারও বলা চলে।

এমনকি সমস্ত পরীক্ষা পেরিয়ে এসেও দুই বছর ট্রেনিংয়ে টিকে থাকতে পারে না অনেকে।

 

নাসার বেতনঃ নাসায় চাকরীর বেতন

নাসায় যারা চাকরি করে থাকেন তাদের বাৎসরিক বেতন সাধারণত ৬০ হাজার হতে ১ লাখ ডলারেরও বেশি হয়ে থাকে।

যারা অনেকদিন ধরে চাকরি করছেন তাদের বেতন বাৎসরিক এক কোটি ডলারও ছাড়িয়ে যায়।

 

চাকরির ক্ষেত্রে একটিই প্রধান শর্ত।

আপনি আর কখনো কোনো বই লিখতে পারবেন না এবং জনসম্মুখে কখনো কোনো বক্তব্য রাখতে পারবেন না।

 

বিশেষ কিছু গোপনীয়তা রক্ষার স্বার্থেই এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়ে থাকে।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আর অপেক্ষা কীসের?

 

যদি বিশ্বব্রহ্মাণ্ড হয়ে থাকে আপনার স্বপ্নের রাজ্য তাহলে গড়ে তুলুন নিজেকে সেভাবেই।

আবেদন করুন নাসায়। পেয়েও যেতে পারেন নাসায় কাজ করার সুযোগ।

 

নাসায় কাজ করার জন্য প্রতিনিয়ত চোখ রাখতে পারেন নাসার ওয়েবসাইটে (nasa.gov)।

তারা সাধারণত তাদের কাজ, উদ্দেশ্য এবং লোকবল সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা দিয়ে থাকে যা আপনার মনোবলকে আরো শক্ত করবে।

নাসায় যেসকল কাজের সুযোগ দেয়া হয় তা সম্পর্কেও খোঁজ পেতে পারেন এখানে।

 

উক্ত বিষয় সর্ম্পকে যেকোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করতে পারেন।

আমাদের সাথে ইউটিউব চ্যানেলে যুক্ত হতে এখানে ক্লিক করুন এবং আমাদের সাথে ফেইজবুক পেইজে যুক্ত হতে এখানে ক্লিক করুন

গুরুত্বপূর্ণ আপডেট ও তথ্য পেতে আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।

Check Also

পিএইচপি প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ

পিএইচপি প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ (ইন্টারভিউ প্রশ্নোত্তর) পর্বঃ ১

আজকে আমরা জানতে পারবো পিএইচপি প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ সম্পর্কে এবং এর প্রশ্নোত্তর। প্রিয় পাঠক, আপনারা পিএইচপি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *